Connect with us

আইপিএল

আইপিএলে কে জিতলো কোন পুরস্কার,এক নজরে দেখে নিন!

Published

on

শেষ হয়ে গেলো দ্বাদশ আইপিএলের জমজমাট আসর।এটা বলাই বাহুল্য যে সেরা দুটি দলই ফাইনাল খেললো এবং সবচেয়ে সেরা মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স মাত্র ১ রানের শ্বাসরূদ্ধকর জয়ের মধ্য দিয়ে চতুর্থবারেরমত নিলো আইপিএল চ্যাম্পিয়নশিপের মুকুট।

শ্বাসরূদ্ধকর ফাইনালে মাত্র ১৪৯ রান করেছিল মুম্বাই। জবাব দিতে নেমে শেন ওয়াটসনের ৮০ রান সত্ত্বেও ১ রানে হেরে গেলো চেন্নাই সুপার কিংস। ১০বারের আইপিএলে (২বার ছিল নিষিদ্ধ) আটবারই ফাইনাল খেলেছে তারা। এর মধ্যে রানারআপ হলো ৫বার। শিরোপা জিতেছে ৩বার।

এবারের আইপিএল ফাইনালে দুর্দান্ত বোলিং করে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতে নিয়েছেন মুম্বাইর জসপ্রিত বুমরাহ। ৪ ওভারে মাত্র ১৪ রান দিয়েছেন। যদিও এর মধ্যে ৪ রান হয়েছে উইকেটরক্ষক ডি ককের ভুলের কারণে। না হয় সেই রান হতো ১০। উইকেট নিয়েছেন ২টি। এ কারণে ম্যাচ সেরা বেছে নেয়া হয়।

আর কলকাতা নাইট রাইডার্স প্লে অফে উঠতে না পারলেও টুর্নামেন্টজুড়ে অসাধারণ পারফরম্যান্স করে টুর্নামেন্ট সেরার পুরস্কার জিতে নিয়েছেন ক্যারিবীয় তারকা আন্দ্রে রাসেল।

এক নজরে দেখে নেয়া যাক, এবারের আইপিএলে কে কি পুরস্কার জিতেছেন:

চ্যাম্পিয়ন : মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স (চতুর্থবার) (২০ কোটি রুপি)।
রানারআপ : চেন্নাই সুপার কিংস (সাড়ে ১২ কোটি রুপি)।
ম্যান অব দ্য ম্যাচ(ফাইনাল) : জসপ্রিত বুমরাহ, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স (৫ লাখ রুপি)।
ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট : আন্দ্রে রাসেল, কেকেআর (১০ লাখ রুপি)।
সেরা মাঠের এবং ক্রিজের পুরস্কার : পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এবং হায়দরাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম (২৫ লাখ রুপি ভাগ করে নেবে দুই অ্যাসোসিয়েশন।
উদীয়মান খেলোয়াড় : শুভমান গিল, কেকেআর (১০ লাখ রুপি)।
টুর্নামেন্ট ফেয়ার প্লে : সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।
মৌসুমের সেরা ক্যাচের পুরস্কার : কাইরন পোলার্ড, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স (১০ লাখ রুপি)।
সেরা স্ট্রাইক রেটের পুরস্কার : আন্দ্রে রাসেল, কেকেআর (১০ লাখ রুপি)অ
অরেঞ্জ ক্যাপ (সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী) : ডেভিড ওয়ার্নার, ৬৯২ রান, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ (১০ লাখ রুপি)।
পার্পল ক্যাপ (সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী) : ইমরান তাহির, ২৬ উইকেট, চেন্নাই সুপার কিংস, (১০ লাখ রুপি)। মৌসুমের দ্রুততম অর্ধশতক: হার্ডিক পান্ডিয়া,মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স (১০ লাখ রুপি )। স্টাইলিস প্লেয়ার অব দ্যা সিজন: লোকেশ রাহুল,পান্জাব(১০ লাখ রুপি)। গেম চেন্জার অব দ্যা ‍সিজন: রাহুল চাহার, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স(১০ লাখ রুপি)।
মোস্ট ভ্যালুয়েবল ক্রিকেটার : আন্দ্রে রাসেল, কেকেআর, (১০ লাখ রুপি)।

আইপিএল

ফাইনালে রক্তাক্ত অবস্থায় খেলেছেন শেন ওয়াটসন!

Published

on

রবিবার (১২ মে) ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) দ্বাদশ আসরে মুখোমুখি হয়েছিল টুর্নামেন্টের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল দুইদল চেন্নাই সুপার কিংস (সিএসকে) ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ম্যাচ হারলেও সিএসকে’র অজি অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন গড়েছেন এক অনন্য কীর্তি।জায়গা করে নিয়েছেন ভক্ত সমর্থকদের মনে।

টস জিতে আগে ব্যাটিং করা মুম্বাই নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটের বিনিময়ে ১৪৯ রান সংগ্রহ করে। সিএসকে থামে মাত্র ১ রান দূরে ১৪৮ রানে। রেকর্ড চতুর্থবারের মতো শিরোপা ঘরে তোলে রোহিত শর্মার দল।পুরো ম্যাচে সর্বোচ্চ রান করেও খালি হাতেই ফিরতে হয় ওয়াটসনকে।

চেন্নাইয়ের হয়ে ব্যাট হাতে একাই লড়ে গিয়েছিলেন শেন ওয়াটসন। ইনিংসের শেষ ওভারে রান আউট হওয়ার আগে খেলেন ৮০ রানের এক রক্তাক্ত ইনিংস! রক্তাক্ত বলার কারণ রান নেয়ার সময় ডাইভ দিতে যেয়ে হাঁটুতে আঘাত পান এই অজি তারকা। চামড়া ভেদ করে রক্ত বের হয়ে ভিজে গিয়েছিল ট্রাউজার। তবুও হাল ছাড়েননি। লড়ে গিয়েছিলেন শেষ পর্যন্ত।ফলে ক্রিকেট বিশ্ব দেখতে পেলো আরেকটি খেলা অনুরাগী মানুষকে যে তার নিজের জীবনকে নয় খেলাকে করেছেন আপন। তার ৫৯ বলের ইনিংসটি সাজানো ছিল ৮টি চার ও ৪টি ছয়ে।

ম্যাচ শেষে ৬টি সেলাই দিতে হয়েছে তাকে। তার চেন্নাইয়ের সতীর্থ হরভজন সিং সামাজিক যোগযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে ওয়াটসনের রক্তাক্ত অবস্থার একটি ছবি দিয়ে প্রশংসা করেছেন। হরভজনের জানায়, চোটের কথা ম্যাচ চলাকালীন কাউকে বলেননি ওয়াটসন।

৮০ রানের ইনিংস খেলার পথে ৪ বার জীবন পেয়েছিলেন ওয়াটসন। ইনিংসের শুরুতেই ৬ রানে রান আউট থেকে রক্ষা পান। এরপরে যথাক্রমে ৩১, ৪২ ও ৫৫ রানে তিনবার করে ক্যাচ আউট থেকে রক্ষা পান এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান।ৎ

উল্লেখ্য,গত এশিয়া কাপে বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কার ম্যাচে বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল ও গড়েছিলেন এমন নজির। যেখানে তিনি এক হাতে ব্যাট করে আলোড়ন সৃষ্টি করে দিয়েছিলেন।

Continue Reading

আইপিএল

প্রতিবাদের ফলস্বরুপ পোলার্ডকে গুনতে হলো জরিমানা!

Published

on

এবারের আইপিএল যেন ছিলো বিতর্কে জর্জরিত।বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন কখনো আম্পায়াররা আবার কখনো করেছেন প্লেয়াররা। তেমনি ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের (আইপিএল) ফাইনালে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধাচারন করে শাস্তির মুখে পড়েছেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার কাইরন পোলার্ড।

চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে ফাইনাল ম্যাচে এই ঘটনার দায়ে ম্যাচ ফির ২৫ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে পোলার্ডকে। ডোয়াইন ব্রাভোর করা ইনিংসের শেষ ওভারে আম্পায়ার নিতিন মেনন দুটি ওয়াইড বল দেননি বলে আম্পায়ারের সাথে বেশ কিছুক্ষন কথা বলেন তিনি।

আম্পয়ারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করার ফলে আইপিএলের কোড অফ কন্ড্যাক্টের ধারা অনুযায়ী তাঁকে জরিমানা করেছেন ম্যাচ রেফারি জাভাগাল শ্রীনাথ।

ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডারের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ এনেছেন অন ফিল্ড আম্পয়ার মেনন এবং ইয়ান গোল্ড। পরবর্তীতে নিজের দায় স্বীকার করে নিয়েছেন পোলার্ড বিধায় আর আনুষ্ঠানিক শুনানির প্রয়োজন পড়েনি। 

এক বিবৃতিতে আইপিএল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ‘পোলার্ড লেভেল ১ এর ২.৮ ধারা ভঙ্গ করেছে এবং এর দায় স্বীকার করে নিয়েছে, সুতরাং আনুষ্ঠানিক শুনানির প্রয়োজন নেই।’ 

উল্লেখ্য আইপিএলের ১২তম আসরের ফাইনালে চেন্নাই সুপার কিংসকে ১ রানে হারিয়ে চতুর্থবারের মতো শিরোপা নিজেদের করে নিয়েছে রোহিত শর্মার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।এই জয়ে পোলার্ডের অবদান ও অনস্বীকার্য ।

আর রুদ্ধশ্বাস এই জয়ের পেছনে অন্যতম ভূমিকা পালন করেছেন গেল বার মুম্বাইয়ের বোলিং মেন্টর হিসেবে কাজ করা লাসিথ মালিঙ্গা।  এবারের আসরে মাঠে নেমে ফাইনালের শেষ ওভারে ৯ রান প্রতিরোধ করেছেন তিনি এবং তাঁর বোলিং নৈপুণ্যে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে মুম্বাই। 

Continue Reading

আইপিএল

আইপিএলের ফাইনালকে ‘ফানি গেম’ আখ্যা দিলেন ধোনি!

Published

on

গৌরবময় অনিশ্চয়তার খেলা ক্রিকেট। ব্যাট বলের এ লড়াইয়ে ম্যাচ শেষ হওয়ার আগে নিশ্চিতভাবে বলা যায় না কিছুই। আর টুর্নামেন্ট যদি হয় আইপিএল এবং ম্যাচটা যদি হয় ফাইনাল, তাহলে অনিশ্চয়তার মাত্রা ছাড়িয়ে যায় হিমালয়কেও।

যার উজ্জ্বল উদাহরণ রোববার রাতে চেন্নাই সুপার কিংস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের ম্যাচটি। যেখানে পরতে পরতে বদলেছে ম্যাচের গতিপথ। কখনো চেন্নাই এগিয়ে তো, কখনো আবার মুম্বাই। শেষপর্যন্ত শেষ ওভারের শেষ বলে গিয়ে শিরোপা জিতেছে মুম্বাই।

ম্যাচে টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা পেয়েছিল মুম্বাই। কিন্তু মাঝপথে খেই হারিয়ে ফেলায় ১৪৯ রানের বেশি হয়নি তাদের সংগ্রহ। রান তাড়া করতে নেমে চেন্নাইয়ের শুরুটাও হয়েছিল দারুণ। কিন্তু তারাও খেই হারায় ১০ ওভারের পর।

তবে একপ্রান্ত আগলে রেখেছিলেন শেন ওয়াটসন। তাকে আবার ৩ বার জীবন দেন মুম্বাইয়ের ফিল্ডাররা। একপর্যায়ে ৩০ বলে ৬২ প্রয়োজন ছিলো চেন্নাইয়ের। তখন বোলিংয়ে এসে ২০ রান খরচ করেন মালিঙ্গা। পরে ক্রুনাল পান্ডিয়ার ওভারে ৩ ছক্কা হাঁকিয়ে সমীকরণ আরও সহজ করেন ওয়াটসন।

কিন্তু শেষ ওভারে বাজিমাত মালিঙ্গার। সহজ ডাবলস নেয়ার ক্ষেত্রে অযথাই অনিশ্চয়তার দোলাচালে পড়ে রানআউট হন ওয়াটসন। পরে শেষ বলে শার্দুল ঠাকুরকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে মুম্বাইয়ের জয়ের নায়ক হন নিজের আগের ওভারে ২০ রান খরচ করা মালিঙ্গা।

এমন উত্তেজনাকর ম্যাচের পর চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি মেনে নিয়েছেন ভুলের মিছিলে মেতেছিল দুই দলই। কিন্তু কম ভুল করায় শিরোপা উঠেছে মুম্বাইয়ের ঘরে। এসময় নিজ দলের মিডলঅর্ডারকেও হারের জন্য দায়ী করেন ধোনি।

ম্যাচ শেষে চেন্নাই অধিনায়ক বলেন, ‘দল হিসেবে আমাদের মৌসুমটা ভালো কেটেছে। তবে আপনি যদি পেছন ফিরে তাকান, তাহলে দেখতে পাবেন এবারের আসরটা এমন ছিলো না যেখানে আমরা দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেছি। আমাদের মিডল অর্ডার কিছুই করতে পারেনি এবার, তবু আমরা উৎরে গেছি। আজকের (ফাইনাল) ম্যাচটিতে আমাদের আরও ভালো করা উচিৎ ছিলো।’

এসময় ফাইনাল ম্যাচটিকে ‘ফানি গেম’ উল্লেখ করে ধোনি বলেন, ‘পুরো ম্যাচটা ছিলো খুবই ফানি গেম। দুই দলই ট্রফিটা একে অপরের দিকে ঠেলে দিচ্ছিল। দুই দলই অনেক ভুল করেছে। শেষপর্যন্ত কম ভুল করায় শিরোপা ঘরে তুলেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। তবে আমাদের বোলাররা বেশ ভালো করেছে। এমন উইকেটে ১৫০ রানের নিচে আটকে রাখা দুর্দান্ত ব্যাপার ছিল।’

Continue Reading
Coming Soon
Advertisement

Most Popular