Connect with us

উইন্ডিজ ক্রিকেট

গেইলের ‘অনুরোধ’ ফিরিয়ে দিয়েছেন আইসিসি!

Published

on

ক্রিস গেইলকে বলা যেতে পারে ব্যাটিং দুনিয়ায় বোলারদের কাছে এক আতঙ্ক। কত বোলারকে যে পিটিয়ে ছাতু বানিয়েছেন তার ইয়ত্তা নেই। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তো বটেই, সুযোগ পেলে অন্য দুই ফরম্যাটেও বিধ্বংসী হয়ে ওঠেন তিনি।

সেই গেইল নিজেকে নিয়ে এতটাই গর্বিত যে, নিজেকে নিজেই ডাকেন ‘ইউনিভার্স বস’ হিসেবে। চলমান বিশ্বকাপে উইন্ডিজের হয়ে অংশ নিচ্ছেন গেইল, সম্ভাব্য শেষবারের মত। আর ক্যারিয়ারের সম্ভাব্য সেই শেষ বিশ্বকাপে আইসিসির কাছে একটি অনুরোধ করেছিলেন গেইল।

গেইলের সেই অনুরোধ ছিল ব্যাটে ‘ইউনিভার্স বস’ লোগো লাগিয়ে খেলা। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, কোনো ক্রিকেটার অক্রিকেটীয় কোনো বিষয় পরিধানের মাধ্যমে বা মাঠে বয়ে নিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে পারবেন না। আর তাই গেইলের ব্যাটে ইউনিভার্স বস লোগো রাখার অনুমতিও দেয়নি আইসিসি, ফলে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে গেইলের অনুরোধ।

রবিবার (৯ জুন) এক বিবৃতির মাধ্যমে আইসিসির পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘আইসিসি ধোনির কোনো ব্যক্তিগত অনুরোধ রাখতে পারে না। গেইল চেয়েছিলেন, তাকেও অনুমতি দেওয়া হয়নি। সে এটা মেনে নিয়েছেন এবং স্বাভাবিকভাবেই খেলে যাবেন।’

সাম্প্রতিক সময়ে এই ব্যাপারে বেশ সচেতন আইসিসি। মহেন্দ্র সিং ধোনি বিশ্বকাপে ভারতের প্রথম ম্যাচে সেনাবাহিনীর প্রতীক সম্বলিত গ্লাভস পরে মাঠে নেমে বোর্ডের সমর্থনও পেয়েছিলেন। কিন্তু অনড় আইসিসি শেষপর্যন্ত নিজেদেরকেই সঠিক প্রমাণ করতে পেরেছে।

অন্যদিকে ইংলিশ মুসলিম ক্রিকেটার মঈন আলী ‘ফিলিস্তিন মুক্ত করো’ লেখা রিস্ট ব্যান্ড পরে মাঠে নামার অনুমতি চেয়েছিলেন। আইসিসি প্রত্যাখ্যান করেছে তাকেও।

উইন্ডিজ ক্রিকেট

ভিভ রিচার্ডস ও লারাকে পেছনে ফেলার সুযোগ গেইলের সামনে!

Published

on

ক্রিকেটে রেকর্ড ভাঙ্গা গড়া যার কাজ তার নাম ক্রিস গেইল। এবারের বিশ্বকাপটা খুব একটা ভালো কাটেনি ‘ইউনিভার্স বস’ খ্যাত ক্যারিবিয়ান দানব ক্রিস গেইলের। যার প্রভাব পড়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সামগ্রিক পারফরম্যান্সেও। এখনও পর্যন্ত ৮ ম্যাচের মধ্যে মাত্র ১টিতে জিতেছে তারা। সঙ্গে পরিত্যক্ত ম্যাচের ১ পয়েন্ট মিলিয়ে তাদের অবস্থান টেবিলের ৯ নম্বরে।

বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপে নিজেদের শেষ ম্যাচটি খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, প্রতিপক্ষ আসরে এখন পর্যন্ত জয়ের দেখা না পাওয়া আফগানিস্তান। নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজ চাইবে এ ম্যাচটা জিতে অন্তত শেষটা ভালো করতে। অন্যদিকে আফগানিস্তানের চাই অধরা জয়।

ম্যাচের ফলাফলের দিকে তাকিয়ে না থেকে গেইল ভক্তরা তাকিয়ে থাকবে তার ব্যাটের দিকে।কেননা ৩টি রেকর্ড অপেক্ষা করছে ক্যারিবীয় ব্যাটিং দানব গেইলের সামনে। এখনও পর্যন্ত ৭ ইনিংসে ৩৩.৫৭ গড়ে ২৩৫ রান করেছেন তিনি। হাঁকাননি কোনো সেঞ্চুরি, রয়েছে কেবল ২টি ফিফটি।

আফগানদের বিপক্ষে ম্যাচে গেইল এবারের আসরে নিজের প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পেয়ে গেলেই পেছনে ফেলে দেবেন স্বদেশি কিংবদন্তি স্যার ভিভ রিচার্ডসকে। বিশ্বকাপে স্যার ভিভের সেঞ্চুরি সংখ্যা ৩টি, যা কিনা ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে সর্বোচ্চ।

ক্রিকেটের বিশ্ব আসরে এখনও পর্যন্ত ২টি সেঞ্চুরি রয়েছে গেইলের। তাই বৃহস্পতিবারের ম্যাচে সেঞ্চুরি পেলেই তিনি ছুঁয়ে ফেলবেন কিংবদন্তি ভিভকে, রেকর্ডটিতে লেখাবেন নিজের নাম। তবে এ রেকর্ডটি বেশ কঠিন মনে হলেও, অন্য রেকর্ড ২টি অতোটা নয়।

এখনও পর্যন্ত ওয়ানডে ক্যারিয়ারে গেইলের মোট রান ১০ হাজার ৩৮৬। তবে এর মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সি গায়ে তিনি করেছেন ১০ হাজার ৩৩১ রান। ক্যারিবীয়দের হয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি ১০ হাজার ৩৪৮ রান করেছেন আরেক কিংবদন্তি ব্রায়ান লারা। অর্থাৎ আর মাত্র ১৮ রান করলেই লারাকে টপকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইতিহাসে সর্বকালের সর্বোচ্চ ওয়ানডে রান সংগ্রাহক হয়ে যাবেন গেইল।

এদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ১২২৫ রান করেছেন লারা। এ রেকর্ড থেকেও খুব দূরে নন গেইল। বিশ্বকাপে তার রানসংখ্যা ১১৭৯। আফগানদের বিপক্ষে ৪৭ রান করলেই লারার এ রেকর্ডটিও চলে যাবে গেইলের দখলে।

Continue Reading

আফগানিস্থান

আফগানিস্তান-উইন্ডিজ ম্যাচে পুলিশ মোতায়েন!

Published

on

বিশ্বকাপের ৪২তম ম্যাচে বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) উইন্ডিজের মুখোমুখি হবে আফগানিস্তান।দুই দলেরই এই বিশ্বকাপে এটা তাদের শেষ ম্যাচ। এর আগে গত ২৯ জুন পাকিস্তানের সমর্থকদের সাথে বিবাদে জড়িয়েছিল আফগান সমর্থকরা। সে ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে উইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে পুলিশ মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ আসরে খেলছে আফগানিস্তান। টুর্নামেন্টের শুরুতেই অন্য দলগুলোকে হুমকি দিয়ে রাখলেও প্রথম ৮টি ম্যাচের একটিতেও জয়ের দেখা পায়নি রশিদ খানেরা। বৃহস্পতিবার সাত্বনার জয়ের খোঁজে উইন্ডিজের মুখোমুখি হবে দলটি।

মাঠের পারফর্ম খারাপের পর আবার সমর্থকদের উগ্র আচরণে নেতিবাচক খবরের শিরোনাম হয়েছে দলটি। গত ২৯ জুন পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠের লড়াইয়ে নেমেছিল আফগানরা। লিডসে স্টেডিয়ামের বাইরে লড়াইয়ে জড়িয়েছিল দুই দলের সমর্থকরা।

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যমের তথ্যমতে, আফগানিস্তানের দুই উইকেট পরে যাওয়ার পর পাকিস্তানি সমর্থকরা উল্লাস করতে থাকে। ঠিক তখন পাকিস্তানের বিপক্ষে স্লোগান দিতে থাকে আফগান ভক্তরা।  এতে দুই দলের ভক্তদের মাঝে তুমুল মারামারি শুরু হয়। মাঠের বাইরে ছড়িয়ে পরে দুই দলের ভক্তদের এই মারামারি। একে অপরের দিকে বিভিন্ন জিনিস ছুড়তে থাকে দুই দলের ভক্তরা।

স্থানীয় পুলিশকে পাত্তা না দিয়েই চলে দুই দলের ভক্তদের মারামারি। আফগানিস্তান সমর্থকরা দাবি করেছিল, উক্ত ঘটনার সূত্রপাত করে পাকিস্তানি ভক্তরা। আইসিসি সেই ঘটনার ব্যাপারেও কঠোর অবস্থান দেখিয়েছিল। তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কিন্তু মাঠের বাইরে পাকিস্তান-আফগানিস্তান ম্যাচের বাজে অভিজ্ঞতার পর বেশ সতর্ক অবস্থানে যাচ্ছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি।কেননা খেলোয়ারদের উপর ও যে পড়তে পারে এর প্রভাব। উইন্ডিজ-আফগানিস্তান ম্যাচের আগেই জানান হয়েছে পুলিশ মোতায়েনের সিদ্ধান্ত। দুই দলের মধ্যকার এই ম্যাচটিও অনুষ্ঠিত হবে লিডসের হেডিংলিতে।

Continue Reading

উইন্ডিজ ক্রিকেট

বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের পরও জরিমানা গুনতে হলো উইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কাকে!

Published

on

গত সোমবার (১ জুলাই) বিশ্বকাপের ৩৯তম ম্যাচে এবং দিনের একমাত্র ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল শ্রীলঙ্কা ও উইন্ডিজ। টুর্নামেন্ট থেকে আগেই ছিটকে যাওয়া দুই দল নিয়মরক্ষার ম্যাচেও দুই দল পেলো না কোন সুখবর। কেননা দুদলকেই যে করা হয়েছে জরিমানা।

নিয়মরক্ষার সেই ম্যাচে মন্থর গতির ওভাররেটের জন্য জরিমানার শিকার হয়েছে দুই দলই।উইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কা দুই দলেরই বিদায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল আগেই। যেখানে ২৩ রানের জয়ে শেষ হাসিটা ছিল শ্রীলঙ্কার। তবে এক জায়গায় দুই দলই সমানে সমান হয়েছে। মন্থর গতিতে বল করার জন্য শাস্তি দেয়া হয়েছে উভয়কেই।

আইসিসি আইন অনুযায়ী, ২.২২ ধারায় বর্ণিত আছে স্লো ওভাররেটের দায়ে দলের সকল খেলোয়াড়কে প্রতি ওভারের জন্য ম্যাচ ফির ১০ শতাংশ জরিমানা করা হবে, যেখানে দলীয় অধিনায়কের জরিমানার পরিমাণ হবে দ্বিগুণ। উক্ত ম্যাচের দায়িত্বরত ম্যাচ রেফারি ডেভিড বুন দুই দলের শাস্তি নিশ্চিত করেছেন। নির্দিষ্ট লক্ষ্যের থেকে উভয় দলই ২ ওভার করে পিছিয়ে ছিল।

২ ওভার পিছিয়ে থাকায় উইন্ডিজের অধিনায়ক জেসন হোল্ডারকে জরিমানা করা হয়েছে ম্যাচ ফির ৪০ শতাংশ আর দলটির বাকি খেলোয়াড়দের ম্যাচ ফির ২০ শতাংশ জরিমানা করা ধরা হয়েছে। লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুণারত্নেকেও ম্যাচ ফির ৪০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছে।

আইসিসির নিয়মানুযায়ী, আগামী ১২ মাসের মধ্যে যদি হোল্ডার বা করুণারত্নের অধীনে যথাক্রমে উইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কা আবারও স্লো-ওভাররেটের দায়ে দণ্ডিত হয় তাহলে তারা পরবর্তী ম্যাচে নিষিদ্ধ হবেন।

হোল্ডার ও করুণারত্নের আগে এই বিশ্বকাপে স্লো-ওভাররেটের কারণে দণ্ডিত হয়েছিলেন কিউই অধিনায়ক কেন উইলিমায়সন। নিউজিল্যান্ড ১ ওভার করে পিছিয়ে থাকায় উইলিয়ামসনকে ম্যাচ ফির ২০ শতাংশ ও দলের বাকি খেলোয়াড়দেরকে ১০ শতাংশ জরিমানা করা হয়েছিল।

Continue Reading
Coming Soon
Advertisement

Most Popular